‘সরি বাবু’র ব্যাখ্যা দিলেন রিয়া

সুশান্ত সিং রাজপুতের শেষকৃত্যে অংশ যাওয়ার অনুমতি পাননি অভিনেতার শেষ প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তী। বাধা দিয়েছিল সুশান্তের পরিবার। তবে প্রেমিককে শেষবারের মতো দেখতে মুম্বাইয়ের কুপার হাসপাতালের মর্গে গিয়েছিলেন রিয়া। সেখানে প্রয়াত সুশান্তের পা ছুঁয়ে অভিনেত্রী বলেছিলেন ‘সরি বাবু’। কিন্তু কেন রিয়া ক্ষমা চাইলেন, সে প্রশ্ন উঠেছে চলচ্চিত্রপাড়ায়।

শুরুতে আত্মহত্যা বলা হলেও এখন অভিনেতার পরিবারের বিশ্বাস, সুশান্তকে খুন করা হয়েছে। কঙ্গনা রনৌত থেকে শুরু করে অনেকের দাবি, সুশান্ত আত্মহত্যা করেননি, এটি পরিকল্পিত খুন। সুশান্তের পরিবারেরও দাবি, সুশান্তের মৃত্যুর সঙ্গে ‘সংযোগ’ রয়েছে রিয়ার। আলোচনায় ‘মুভি মাফিয়া’।

ডিএনএর প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত বৃহস্পতিবার এক ভিডিও বার্তায় সুশান্ত সিং রাজপুতের বাবা কে কে সিং দাবি করেন, তাঁর ছেলেকে দীর্ঘদিন ধরে বিষ খাইয়েছেন রিয়া চক্রবর্তী। রিয়াকে গ্রেপ্তারের দাবিও তাঁর। পত্রপত্রিকায় রিয়া চক্রবর্তীর ‘মাদক বিতর্কের’ পর নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি) অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে ফৌজদারি অপরাধের অভিযোগে মামলা করে।

সুশান্তের বাবা কে কে সিং বলেন, ‘দীর্ঘদিন আমার ছেলেকে বিষ দিয়েছে রিয়া। সে ওর খুনি। কর্তৃপক্ষের কাছে আমার অনুরোধ, সে ও তার সহযোগীদের যেন দ্রুত গ্রেপ্তার করা হয় এবং শাস্তি দেওয়া হয়।

তাই মর্গে রিয়ার ‘সরি বাবু’ বলার রহস্য কী, তা নিয়ে নানান প্রশ্ন দানা বাধে। তবে ঠিক কী কারণে রিয়া ক্ষমা চেয়েছিলেন তার ব্যাখ্যা দিয়েছেন অভিনেত্রী। ইন্ডিয়া টুডেকে উদ্ধৃত করে বলিউড বাবলের খবরে জানা যায়, সুশান্ত চলে যাওয়ার পর তাঁর মৃত্যু যে ‘কৌতুকে’ পরিণত হয়েছে, সেই দুঃখে তিনি ‘সরি বাবু’ বলেছিলেন।

রিয়া চক্রবর্তী বলেন, ‘হ্যাঁ, কেউ মারা গেলে আর কী-ই বা বলা যেতে পারে? আমি দুঃখিত, তুমি চলে গেছ। এবং আজ আমি দুঃখিত যে তোমার মৃত্যু নিয়ে কৌতুক করা হচ্ছে। আমি দুঃখিত যে তোমার ভালো কাজ, মেধা বা দানশীলতা—এসব তোমার শেষ স্মৃতি হয়ে থাকল না। আমি দুঃখিত, সবাই তোমার মৃত্যু নিয়ে কৌতুক করছে এবং আমি দুঃখিত যে তুমি আর নেই।’

রিয়া আরো বলেন, ১৪ জুন দুপুর ২টার দিকে তিনি সুশান্তের মৃত্যুর খবর শুনতে পান। এ খবরে তিনি ভেঙে পড়েছিলেন। কিন্তু শেষকৃত্যে যাওয়ার অনুমতি দেয়নি সুশান্তের পরিবার।

গত ১৯ আগস্ট সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর মামলায় সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দেন ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। একই সঙ্গে মুম্বাই পুলিশ যেসব প্রমাণ সংগ্রহ করেছে, তা যেন সিবিআইয়ের কাছে হস্তান্তর করে, সে আদেশও দেন আদালত। বলিউডের অনেক তারকা এ রায়কে স্বাগত জানান।

এর আগে ২৫ জুলাই সুশান্তের বাবা কে কে সিং অভিনেত্রী ও প্রয়াতের কথিত প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনা ও বিষণ্ণতার জন্য তাঁকে দায়ী করে এফআইআর দায়ের করেন। কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা এখন তদন্ত করছে ঠিক কী কারণে ১৪ জুন আত্মহত্যা করেছেন সুশান্ত বা এর নেপথ্যের কারণই বা কী, তা খুঁজে বের করতে মরিয়া তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *