এগিয়ে থেকেও মোনাকোর কাছে হারলো পিএসজি

ডেস্ক নিউজঃ ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে মোনাকো হারিয়ে দিল চ্যাম্পিয়ন পিএসজিকে। প্রথমার্ধে কিলিয়ান এমবাপের জোড়া গোলে এগিয়ে থেকেও মোনাকোর কাছে ৩-২ গোলে হেরে গেল টমাস টুখেলের দল।

শুক্রবার (২০ নভেম্বর) রাতে মোনাকোর বিপক্ষে প্রথমার্ধে ২-০ গোলে এগিয়ে গিয়েও শেষ পর্যন্ত ৩-২ ব্যবধানে হার মেনেছে নেইমার-এমবাপেরা। এদিন এমবাপের জোড়া গোল ছাড়াও মোনাকোর পক্ষে জোড়া গোল করেন কেভিন ফলান্ড। অন্য গোলটি আসে সেস ফাব্রেগাসের পা থেকে।

ম্যাচের ২৫তম মিনিটে এগিয়ে যায় সফরকারীরা। মাঝমাঠ থেকে আনহেল দি মারিয়ার বল ধরে এগিয়ে যান এমবাপে। পাহারায় রাখা আকসেল দিসাসিকে এড়িয়ে ডি বক্সে ঢুকে ডান পায়ের বুলেট গতির শটে দূরের পোস্ট দিয়ে জাল খুঁজে নেন তিনি।

ইনজুরি থেকে সেরে উঠে শুক্রবারই পিএসজির হয়ে প্রথম মাঠে নামেন এমবাপে। ২৫ মিনিটে তিনি গোল করে এগিয়ে নেন দলকে। ৩৭ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন এমবাপে। এ সময় রাফিনহাকে বক্সের মধ্যে ফাউল করেন ইউসৌফ ফোফানা। রেফারি পেনাল্টির বাঁশি বাজান।

এরপর মইসে কিয়ান বল জালে জড়িয়েছিলেন পিএসজির হয়ে। সেটি ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির মাধ্যমে বাতিল হয় অফসাইডের কারণে। বিরতির আগে এমবাপে আরও একটি গোল করেছিলেন। কিন্তু সেটিও বাতিল হয় অফসাইডের কারণে।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে পিএসজিকে চেপে ধরে মোনাকো। বদলি নামেন ফাব্রেগাস ও কাইয়ো হেনরিক। ধার বাড়ে স্বাগতিকদের আক্রমণে।

২-০ গোলে পিছিয়ে থাকা মোনাকো ম্যাচের ৫২ মিনিটে ব্যবধান কমায়। জেলসন মার্তিনেসের কাছ থেকে বল পেয়ে জাল খুঁজে নেন জার্মান ফরোয়ার্ড ফলান্ড। ৬৫ মিনিটে ম্যাচে সমতাও আনে দলটি।

ক্রস নিয়ন্ত্রণে নিতে যাওয়া ফাব্রেগাসকে ঠেকাতে লাইন ছেড়ে এগিয়ে আসেন পিএসজির গোলরক্ষক নাভাস। কিন্তু পাননি বলের নাগাল। স্প্যানিশ মিডফিল্ডারের কাছ থেকে বল পেয়ে অনায়াসে ফাঁকা জালে বল পাঠান ফলান্ড।

আর ফ্যাব্রিগাস ৮৪ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে পূর্ণ ৩ পয়েন্ট পাইয়ে দেন মোনাকোকে। এ সময় ফলান্ডকে দিয়ালো ফাউল করায় পেনাল্টি পায় স্বাগতিকরা। ভিএআরে দেখে পিএসজি ডিফেন্ডারকে লাল কার্ড দেখান রেফারি। আর সফল স্পট কিক নেন ফ্যাব্রিগাস।

এই জয়ে ১১ ম্যাচে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষেই রয়েছে পিএসজি। টানা তৃতীয় জয়ে ২০ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে উঠে এসেছে মোনাকো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *