ডাঙ্গা ও নদীর সংযোগ ঘটাচ্ছে ৩৮তম স্প্যান

পদ্মাসেতুর ৩৮তম স্প্যান বসানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। শনিবার (২১ নভেম্বর) সেতুর মাওয়া প্রান্তে কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ভাসমান ক্রেন তিয়ান-ই ৩৮তম ক্রেনটি নিয়ে সেতুর ১ ও ২ নং পিয়ারের কাছে পৌছেছে। এই দুটি পিয়ারের ১ নং ডাঙ্গায়, ২ নং পিআর নদীতে। সে কারণে প্রকৌশলগত বিভিন্ন ব্যবস্থা নিতে হয়েছে সেতু কর্তৃপক্ষকে।

শনিবার সকাল থেকেই কর্মযজ্ঞ শুরু হয়। তবে এর আগে থেকেই নদীর একেবারে তীর ঘেঁষে যাতে স্প্যানবাহী ক্রেন পৌঁছাতে পারে সে জন্য ড্রেজিং করা হয়।

সেতু প্রকৌশলীরা জানান এই স্প্যানটির ব্যাপারে তাদের নিতে হয়েছে বাড়তি প্রস্তুতি ও বাড়তি সতর্কতা। সেতুর এটিই প্রথম স্প্যান। এর উপর দিয়েই যে কোনো ভারি যানবাহন এমনকি ট্রেনও উঠবে সেতুতে। তারা জানান পদ্মাসেতুর প্রতিটি স্প্যানের ডিজাইনই একটির থেকে অপরটি ভিন্ন। তবে ১ ও ২ নম্বর খুঁটির উপর বসতে যাওয়া স্প্যানটির ভিন্নতা অনেক বেশি। এ স্প্যানটির যন্ত্রাংশ চীন থেকে তৈরি হয়ে এসেছে অনেক পরে। অন্য পিয়ারগুলোতে ৬ থেকে ৭টি পাইল ব্যবহার করা হলেও শক্তিশালী এ পিয়ারটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ১৬টি পাইল।

এ সব কারণে কিছুটা সময় লাগলেও শনিবারেই এই ৩৮তম স্প্যানটি বসবে সেতুর কাঠামোয়। তাতে মূল কাঠামো দাঁড়াবে ৫ কিলোমিটার ৭০০ মিটার।

৩৭তম স্প্যান বসানোর নয় দিনের মাথায় বসছে ৩৮তম স্প্যান।

এছাড়া চলতি মাসের শেষের দিকে ২৭ অথবা ২৮ তারিখে দিকে বসতে পারে ৩৯তম স্প্যান এবং বাকি ২টি স্প্যান বিজয়ের মাসে ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যেই বসানো হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *